Cookie Policy          New Registration / Members Sign In
PrabashiPost.Com PrabashiPost.Com

নিবেদিতার বাড়ি

মা, ভাই রিচমন্ড, বোন মে সবাইকে নিয়ে এই বাড়িতে থাকতেন নিবেদিতা আর অসুস্থ শরীর নিয়েও বিবেকানন্দ চলে আসতেন নোবেল পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে ।

সুচেতনা সরকার
Mon, Jun 17 2013

Photograph: Suchetana Sarkar

About সুচেতনা

পেশায় ফিজিক্সের হাইস্কুল শিক্ষিকা, আর নেশা অসংখ্য - গান শোনা, রান্নাবান্না, সুযোগ পেলেই বেড়ানো, ফুলের বাগান সাজান, লুকিয়ে লুকিয়ে কবিতা লেখা আর সবচেয়ে বড় নেশা হল ইতিহাস । পেশার সূত্রে বিলিতি সমাজটাকে মাটির কাছ থেকে দুচোখ ভরে দেখার সুযোগ জীবনকে চিনিয়েছে বহুমাত্রিক ভাবে । আর ইতিহাসের সাথে অভিজ্ঞতার বুনন মাঝে মাঝে কলম কালিতে এঁকে নেওয়াটা স্বপ্ন হয়ে জমে রয়েছে মনের মাঝে ।


More in Culture

Happy Colours of Life

Durga Puja in London: The UnMissables

Mahishasura Mardini

একা বোকা

 
উইম্বলডন স্টেশন থেকে বেরিয়ে নাক বরাবর খাড়াই রাস্তা ধরে উঠে যান – পথে দু একবার বিশ্রামও নিতে পারেন - অভিজাত এলাকা, বিশাল বাগানবাড়ির সামনের নির্জন রাস্তায় বড় বড় গাছের নীচে শ্রান্ত পথিকদের জন্য বসার ব্যবস্থা আছে । পাশে একবার তাকিয়ে দেখুন – চমকে উঠলেও উঠতে পারেন - পাশে বসে আছেন স্বামী বিবেকানন্দ । শুধু সময়টা বদলে গেছে এখন আপনি আর ২০১৩ সালে নেই পৌঁছে গিয়েছেন ১৮৯৯ সালে ।

পাহাড়ী রাস্তার নীচে লাইমস বলে একটি বাড়ি ভাড়া নিয়েছেন স্বামীজি - সঙ্গে তুরীয়ানন্দ । শরীর অসুস্থ - তবুও তিনি চলেছেন – হ্যাঁ ঠিক ধরেছেন গন্তব্য নোবেল পরিবারের বাড়ি ২১ নম্বর উইম্বলডন হাই স্ট্রিট । ১৯০১ সালের ব্রিটিশ জনগণনা অনুযায়ী এই বাড়িতে ছিলেন নিবেদিতা, ভাই রিচমন্ড, বাড়ির কাজের লোক ছাড়াও কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তনী জগদীশ বোস এবং তাঁর স্ত্রী অবলা বোস । ততদিনে মে (নিবেদিতার বোন) বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন ।

আপনার ভাগ্যও যদি আমাদের মত হয় তবে কলিংবেল বাজালেও কেউ দরজা খুলবেনা বাড়ির নীচে জিরাফ ক্যাফের সুদর্শন ম্যানেজারকে জিজ্ঞেস করতে পারেন তিনি আপনাকে একই কথা বলবেন যা আমাকে বলেছিলেন । এখন সেখানে এক বয়স্ক অথর্ব মানুষ বসবাস করেন, তিনি আর নিজে নামতে পারেননা, যখন ছেলে মেয়ে আসে তাঁর দেখাশুনা করতে তখনই সেই দরজা খুলতে দেখা যায় । তবে এই বাড়ির মালিক মিস্টার প্যাটেল ভারতীয় বংশোদ্ভূত, তার সাথে যোগাযোগ করলে হয়ত বাড়ির ভিতরে ঢোকার অনুমতি মিললেও মিলতে পারে ।

অগত্যা আমাদের মত উপরের জানলার ছবি তুলে নিতে পারেন অবশ্যই- একটু ভালো করে তাকিয়ে দেখুন হয়ত দেখতে পাবেন আরামকেদারায় বসে আছেন অসুস্থ স্বামীজি আর তাঁকে ঘিরে রয়েছেন ব্যস্তসমস্ত একটি আইরিশ পরিবার । সিস্টার নিবেদিতা, তাঁর মা, ভাই রিচমন্ড, বোন মে সবাই মিলে থাকেন এই বাড়িতে । অসুস্থ শরীর নিয়েও স্বামীজি চলে আসতেন নোবল পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে । পরিব্রাজক, দার্শনিক, উদ্যোগী,পরিচালক স্বামীজিকে অসুস্থ শরীর কি কোনদিন কাবু করতে পেরেছে ?

নিবেদিতার ভাই রিচমন্ড একদিন মজা করেই বলেন “আমরা আইরিশ পরিবার কিন্তু জরজবরদস্তি নিবেদিতা আমাদের হিন্দু বানাবার চেষ্টায় আছে, বাড়িতে গরুর মাংস ঢুকতেই দেয়না ।“ বিবেকানন্দ তখন রিচমন্ডকে সামনে দোকানে নিয়ে গিয়ে গরুর মাংসের অর্ডার দিয়ে বললেন, “রিচমন্ড খাও । নিবেদিতা তোমাকে যে অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে আমি তোমাকে তাই দিলাম ।“ হতভম্ব রিচমন্ড ! এ কোন হিন্দু সন্ন্যাসী ! যিনি গোমাংসের পরোয়া করেননা । উদার উন্মুক্ত সমজ্ঞানী ।

বিবেকানন্দের অপুর্ণ কার্য্যভারের যথার্থ উপসংহার ভগিনী নিবেদিতা । সারদা মায়ের আদরের খুকি, যিনি সব সুখ ঐশ্বর্য্য তুচ্ছ করে ভারতের পথে পথিক হয়েছিলেন । নিবেদিতার আত্মত্যাগের সেই উজ্জ্বল ইতিবৃত্তে উইম্বলডনের এই বাড়িটির ভূমিকা অনস্বীকার্য ।

Please Sign in or Create a free account to join the discussion

bullet Comments:

 
Rajshekhar Banerjee (Tuesday, Jun 18 2013):
Thanks Prabashi Post for such a wonderful piece. Wish it was a bit longer with much more details. I think the London authorities should put up a Blue Plaque in honour of Sister Nivedita. Would like to read similar write ups on Swami Vivekananda, Netaji and Gandhiji in London.
 

 

  Popular this month

 

  More from সুচেতনা

advertisement

PrabashiPost Classifieds



advertisement


advertisement


advertisement